Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ জন নারী তালাকপ্রাপ্ত হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন, সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘তার কাছে প্রতিদিনই আসে এ সব তালাকের নোটিশ। গত মাসে তিনি প্রায় দুই শতাধিক তালাকের নোটিশ পেয়েছেন। যা একটি সামাজিক ব্যাধিতে রূপান্তরিত হচ্ছে। তাই ওই ব্যাধি দূর করতে সকলেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। তাছাড়া এসকল ক্ষেত্রে মানবাধিকার সংগঠনগুলোর গুরুত্ব অপরিসীম।’

মেয়র বলেন, ‘বর্তমান সমাজে পদে পদে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। প্রতিদিনই কোন না কোন স্থানে নির্যাতিত হচ্ছেন নারী বা শিশুরা। তাই এ সকল কিছু প্রতিরোধে নিজ পরিবার থেকেই উদ্যোগ নিতে হবে। যেখানেই মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে সেখানেই প্রতিরোধ আর প্রতিবাদ করতে হবে। তাহলে সমাজে ফিরে আসবে শান্তি আর শৃঙ্খলা।’

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন (বিএইচআরসি) সিলেট জেলা ও মহানগর শাখা আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এ কথা বলেন।

মঙ্গলবার দুপুরে কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেট বিভাগীয় গভর্নর ও জেলা সভাপতি ড. আর. কে ধর এর সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমদ মাসুমের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন, শাবিপ্রবির সমাজ কল্যাণ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক তাহমিনা ইসলাম।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, মেট্রোপলিটন বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. শের-ই-আলম, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সদর দপ্তরের বিশেষ প্রতিনিধি ফারুক আহমদ শিমুল, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেট বিভাগীয় আঞ্চলিক সমন্বয়কারী ও সিলেট মহানগরের সভাপতি মো. আব্দুল মন্নান, ইউএসএ সভাপতি শরিফ আহমদ, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেট জেলার সহ-সভাপতি ও জকিগঞ্জ উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান সাজেদা রওশন শ্যামলী প্রমুখ।

এছাড়াও বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সিলেটের র‌্যালি ও আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিশ্বনাথ, ওসমানীনগর, সদর, কোম্পানীগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা, বিয়ানীবাজার উপজেলার নেতৃবৃন্দ।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here