Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

ফেসবুক ছাড়া কিছুই যেন ভাবতে পারি না। নিজের সব ছবি শেয়ার না করলে যেন ঘুমই হতে চায় না। তার ওপর আবার জীবনের বিশেষ দিন। জন্মদিন বা বিবাহের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেন অনেকেই। কিন্তু জানেন কি, সবকিছু শেয়ার করা মোটেও উচিত নয়। এতে আপনি বিপদেও পড়তে পারেন। তাই আপনার জন্য রইল কিছু পরামর্শ-

বিশেষ মুহূর্ত: বিয়ের আগে মনের মানুষের সঙ্গে রেস্তোরাঁ বা কফি শপে যেতে পারেন। একসঙ্গে শপিং মলে গিয়ে সুন্দর মুহূর্ত কাটাতে পারেন। এ সম্পর্ক ভার্চুয়াল জগতে টেনে আনবেন না। সম্পর্কে কোন ঝামেলা না চাইলে ফেসবুকে ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি ভুলেও শেয়ার করবেন না।

বিয়ের কার্ড: বাড়ি বাড়ি ঘুরে বিয়ের কার্ড বিলি করার দিন শেষ। হোয়াটসঅ্যাপ কিংবা মেসেঞ্জারের মাধ্যমে নিমন্ত্রণ সারছেন অনেকেই। আবার অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় কার্ড পোস্ট করেন। মনে রাখবেন, ফেসবুকে থাকা সব বন্ধুই নিমন্ত্রিত নন। তাই তাদের সামনে কার্ডের ছবি পোস্ট করা মোটেও ঠিক নয়।

বিয়ের কেনাকাটা: বিয়ে উপলক্ষে কেনাকাটা প্রচুর হবে, তাতে কোন সন্দেহ নেই। তবে কত দাম দিয়ে বিয়ের শাড়ি, গয়না কিনলেন, তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন না। এতে আপনার সম্পর্কে মানুষের ভুল ধারণা তৈরি হতে পারে।

খাদ্য তালিকা: কোথায় বিয়ে করছেন, বিয়ের দিন খাবারের তালিকায় কী কী থাকছে, তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন না। মনে রাখবেন, তাতে পরিচিতরা অনুষ্ঠানে আগ্রহ হারাবেন।

অপেক্ষার মুহূর্ত: বিয়ের দিন যত ঘনিয়ে আসে, ততই উত্তেজনা বাড়ে। তাই মনে মনে অপেক্ষার দিন গুনলেও তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন না। কারণ আপনার বিয়ের দিন-তারিখ নিয়ে মোটেও আগ্রহী নন ফেসবুক বন্ধুরা।

বিয়ের ছবি: বিয়ের প্রতিটি মুহূর্ত ফ্রেমবন্দি করার জন্য ক্যামেরা তো আছেই। আছে স্মার্টফোনও। কিন্তু বিয়ে শেষ হতে না হতেই সব ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন না। কিছু মুহূর্ত থাক না শুধুই ব্যক্তিগত।

হানিমুনের ছবি: বিয়ের পর হানিমুন বা মধুচন্দ্রিমায় সবাই যান। একান্তে কাটানো সুন্দর মুহূর্তগুলোর স্মৃতি সবসময়ই সুখের। কিন্তু সব ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করবেন না। দু’জনের কাছাকাছি আসা ছবিগুলো ব্যক্তিগতই থাক না।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here