Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

বরগুনা-২ আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শওকত হাচানুর রহমান রিমনসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করেছেন প্রিয়াঙ্কা মিত্র নামের একজন আইনজীবি। শুক্রবার মামলার বাদী ও তার সহযোগী আইনজীবী আরিফ হোসেন গণমাধ্যমকর্মীদের মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

 

এর আগে গত বুধবার বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী এলাকায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা চলাকালীন মন্দির ভাংচুর ও হামলার অভিযোগে আদালতে মামলা দায়ের করেন প্রিয়াঙ্কা মিত্র। মামলায় এমপি শওকত হাচানুর রহমান রিমন ছাড়াও মো: রাকিব মুন্সি, মো: মনির হোসেন, শাহিন মুন্সি, জহির, জাকির বিশ্বাস, মো: আতিকুর রহমান লাবু, মো: মাফুল, মো: আলাউদ্দিন খান, মিরাজ, মোস্তফা, রাজা ও পানি উন্নয়ন বোর্ড পাথরঘাটা উপজেলার উপ সহকারী প্রকৌশলী মো. খলিলুর রহমানকে আসামী করা হয়েছে।

 

মামলার বাদী প্রিয়াঙ্কা মিত্র বলেন, আদালতের দেওয়া স্থিতি অবস্থায় থাকাকালীন আদেশের সময় আমাদের জমিতে এসে এমপি রিমনের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী আমাদের সপরিবারে উচ্ছেদের চেষ্টা চালায়। এ সময় এমপি রিমন আমার জমির তদারকির দায়িত্বে থাকা তাইমুল ইসলাম নামের এক যুবককে মারধর করেন। সেই সঙ্গে আমাকেও মারধর করেন। এ সময় এমপির নির্দেশে আমাদের জমির ওপর নির্মিত রাধা গোবিন্দ মন্দির উচ্ছেদ করা হয়। আমি আদালতের মাধ্যমে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। আদালত নিশ্চই আমার সুবিচার নিশ্চিত করবে।

 

এ বিষয়ে বরগুনা-২ আসনের সাংসদ শওকত হাচানুর রহমান রিমন বলেন, বর্তমান সরকারের চলমান উন্নয়ন কার্যক্রমকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য প্রিয়াঙ্কা মিত্র অবৈধভাবে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জমিতে একটি টিনশেড ঘর তৈরি করে মন্দির নাম দিয়েছে। মন্দির ভাংচুরের কথা অস্বীকার করে তিনি বলেন, দুর্গাপূজা করার জন্য পূজা উদযাপন পরিষদের কাছ থেকে একটি টিনশেড ঘর নির্মাণ করেছিল সেটি এখনও বিদ্যমান রয়েছে। প্রিয়াঙ্কা মিত্র জমি দখল করার জন্য আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here