Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

অ্যাপল ও গুগলকে পেছনে ফেলে ব্র্যান্ড হিসেবে শীর্ষ স্থান দখল করেছে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়েব সার্ভিস ভিত্তিক কোম্পানি অ্যামাজন। মঙ্গলবার এ তথ্য প্রকাশ করেছে বিশ্ববাজার গবেষণা সংস্থা কান্টার।

কান্টার জানিয়েছে, অ্যামাজনের ব্র্যান্ড মূল্য ৫২ শতাংশ বেড়ে ৩১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। এর আগে অ্যামাজন তিন নাম্বার স্থানে ছিল। প্রথম স্থানে ছিল গুগল। কিন্তু বর্তমানে অ্যামাজন দখল করেছে প্রথম স্থান। আর দ্বিতীয় স্থান দখল করেছে অ্যাপল। তৃতীয় স্থানে আছে গুগল।

কান্টার জানায়, উচ্চমানের ব্যবসায়িক মডেল অ্যামাজনকে রাজস্ব প্রবাহের ধারা অব্যাহত রাখতে সহায়তা করেছে। সেই সাথে প্রতিষ্ঠানটির উচ্চতর গ্রাহক সেবা সরাসরি গ্রাহকদের মন জয় করেছে। বিশ্ব বাজারে এই প্রতিষ্ঠানটি তার প্রতিযোগীদের সাথে প্রতিযোগিতা করে সামনে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা অর্জন করেছে। যার ফলে ক্রমাগত অ্যামাজনের ব্র্যান্ড মান বৃদ্ধি পেয়েছে।

বর্তমানে ব্রান্ডের মূল্যের দিক দিয়ে বিশ্ববাজারে সেরা দশটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সেরা তিনটিই যুক্তরাষ্ট্রের। প্রথম স্থানে অ্যামাজন। যার ব্রান্ড মূল্য ৩১৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে অ্যাপল। এই প্রতিষ্ঠানের ব্রান্ড মূল্য ৩০৯ দশমিক ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। অন্যদিকে তৃতীয় স্থানে রয়েছে গুগল। এটির ব্রান্ড মূল্য ৩০৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

এদিকে চার নাম্বার স্থানে রয়েছে মাইক্রোসফট। এটির ব্রান্ড মূল্য ২৫১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ভিসা রয়েছে পাঁচ নাম্বার স্থানে। এটির ব্রান্ড মূল্য ১৭৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ১৫৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্রান্ড মূল্য নিয়ে ছয় নাম্বার অবস্থানে রয়েছে ফেসবুক।

চীনের কোম্পানি আলিবাবা রয়েছে সাত নাম্বার অবস্থানে। এই প্রথম প্রতিষ্ঠানটি সেরা সাতে জায়গা দখল করে। এটির ব্রান্ড মূল্য ১৩১ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান টেনসেন্ট কোম্পানি রয়েছে আট নাম্বার স্থানে। এটির ব্রান্ড মূল্য ১৩০ দশমিক ৯ মার্কিন ডলার।

ব্রান্ড মূল্যের দিক থেকে সেরা ১০০টি কোম্পানির মধ্যে এশিয়ার রয়েছে মাত্র ২৩টি কোম্পানি। ২৩টির মধ্যে আবার ১৭টি কোম্পানিই চীনের।

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here