Want create site? Find Free WordPress Themes and plugins.

প্রত্যাশা ছিল আকাশছোঁয়া, কিন্তু প্রাপ্তির খাতাটা বলা চলে শূন্য। হতাশাটা তাই স্বাভাবিক। বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাও এর ব্যতিক্রম নন। দলের হতশ্রী পারফরম্যান্সে হতাশ অধিনায়ক নিজেও।

আজ (রোববার) দীর্ঘ প্রায় আড়াই মাসের সফর শেষে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ দল। বিমানবন্দরেই মাশরাফি মুখোমুখি হন সংবাদকর্মীদের। যেখানে হতাশা আর আক্ষেপ ঝরেছে টাইগার অধিনায়কের কণ্ঠে। প্রত্যাশা অনুযায়ী যে খেলতে পারেননি তা অবলীলায় স্বীকার করেছেন তিনি।

চোখে-মুখে স্পষ্ট অসহায়ত্ব নিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘যে প্রত্যাশা নিয়ে গিয়েছিলাম সে জায়গা থেকে অবশ্যই আমরা হতাশ। তবে পুরো বিশ্বকাপ যদি দেখেন, আমরা যেভাবে খেলেছি যদি কিছু জিনিস আমাদের পক্ষে থাকত আমরা সেমিফাইনালে যেতে পারতাম। সবকিছু মিলিয়ে খেলার ধরন বা সব মিলে যেরকম ছিল অবশ্যই সেটা অনেক ইতিবাচক ছিল। একই সঙ্গে টিমে আশা যেরকম ছিল সে জায়গা থেকে হতাশ।’

১০ দলের টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের অবস্থান অষ্টম। শুধু খারাপ পারফরম্যান্সই কি দায়ী এর পেছনে? মাশরাফি অবশ্য নিজেদের পারফরম্যান্সের সঙ্গে দায় দেখছেন ভাগ্যেরও। সঙ্গে বৃষ্টিতে নিজেদের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া ও অন্য দলগুলোর লাভবান হওয়াকে সেমিফাইনাল খেলতে না পারার কারণ হিসেবে দেখছেন টাইগার অধিনায়ক।

মাশরাফি আরও বলেন, ‘ভারত ম্যাচের আগ পর্যন্ত সেমিফাইনালে খেলার সবরকমের সুযোগ ছিল। তার আগ পর্যন্ত যদি…যেগুলো বললাম, পারফরম্যান্সের ওঠানামা ছিল। ধারাবাহিকতায় সাকিব বা মুশফিক ছাড়া বাকি সবার সমান ছিল না। একই সময়ে কিছু জায়গায় লাক ফেভার করার দরকার ছিল, সেটাও করেনি। একটা সপ্তাহে বৃষ্টিতে শুধু আমরাই ক্ষতিগ্রস্ত হইনি, অন্যান্য টিমও কিছুটা লাভবান হয়েছে। এসব কিছু মিলে আর কী…।’

Did you find apk for android? You can find new Free Android Games and apps.

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here